আপনি জানেন কি? – ২২৯৩

কানাডায় একটি শহর আছে যেই শহরে মাত্র ৪জন মানুষ বাস করে।শহরটির নাম টিল্ট কোভ। মাত্র ৪জন বাস করা সত্ত্বেও এই শহরে সব নাগরিক সুবিধাই আছে।


আপনি জানেন কি? – ২২৮০

ইতালিতে অবস্থিত সেলিয়া শহরটিতে বড় জোর ৫৩৭ জনের বাস করে এবং সবারই বয়স ৬৫-এর কাছাকাছি। সরকারের নিয়মানুসারে এখানে রোগাক্রান্ত হওয়া চলবে না এবং রোগে ভুগে মৃত্যু তো একেবারে বেআইনি। এই শহরের বাসিন্দাদের বছরে একবার ফুল বডি চেকআপ করতেই হবে। আর যদি কেউ এমনটা না করেন তাহলে ১০ ইউরো পর্যন্ত ফাইন করা হয়ে থাকে।


আপনি জানেন কি? – ২২৭৯

পাহাড়-পর্বতে ঘেরা ফ্রান্সের লা-ল্যাভেনডিউ শহরটির সরকার সমুদ্রের ধারে কবরস্থান বানাতে নিষেধ করেছে এবং পুরনো কবরস্থানে আর জায়গা নেই। তাই তিনি একটি আইন জারি করেছেন, তাতে বলা হয়েছে অন্য কোনও দেশ থেকে কেউ এই শহরে বেরাতে এসে যদি মারা যান, তাহলে তার মৃতদেহ তার দেশে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। ভুলেও লা-ল্যাভেনভিউ শহরে তাকে কবর দেওয়া চলবে না।


আপনি জানেন কি? – ২২৭৪

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে মোড়া জাপানের ইটসুকুসিমা দ্বীপটিকে সেখানকার বাসিন্দারা  পবিত্র বলে মনে করেন। তাই এ জায়গায় কারও মৃত্যু হোক এমনটা তারা চান না। সেই কারণেই তো ১৮৭৮ সাল থেকে নিয়ম করে মৃত্যুর উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সেখানকার সরকার।


আপনি জানেন কি? – ২২৭৩

প্রশান্ত মহাসাগরে অবস্থিত সামোয়া নামের দ্বীপরাজ্যটি নিউজিল্যান্ড থেকে স্বাধীনতা ঘোষণা করে ১৯৬২ সালে৷ সে যাবৎ দেশটির কোনো সামরিক বাহিনী নেই৷ নিউজিল্যান্ড প্রয়োজনে দেশটির প্রতিরক্ষার জন্য সামরিকভাবে হস্তক্ষেপ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ৷


আপনি জানেন কি? – ২২৭২

মধ্য আমেরিকার দেশ কোস্টা রিকার সংবিধানেই আছে যে, দেশের কোনো সামরিক বাহিনী থাকবে না৷ এই পরিস্থিতি চলছে ১৯৪৯ সাল থেকে। এমনকি জাতিসংঘের শান্তি বিশ্ববিদ্যালয়ও এই কোস্টা রিকায়।


আপনি জানেন কি? – ২২৪৯

ভারত মহাসাগরে অবস্থিত অস্ট্রেলিয়ান দ্বীপ ক্রিস্টমাস দ্বীপে মানুষের চেয়ে বেশি হচ্ছে লাল কাঁকড়ারা। তাই একে কাঁকড়ার দ্বীপ বলা হয়। প্রায় ২৫,০০০ লাল কাঁকড়া বাস করে এখানে।


আপনি জানেন কি? – ২২২২

ওকিনোশিমা নামে দক্ষিণ-পশ্চিম জাপানের পবিত্র দ্বীপটিতে আছে মুনাকাতা তাইশা ওকিটসুমিয়া নামে একটি মন্দির – যা সমুদ্রের দেবীর সম্মানে তৈরি।


আপনি জানেন কি? – ২২১৬

জাপানে মহিলাদের যাওয়া নিষিদ্ধ এমন একটি দ্বীপকে বিশ্ব ঐতিহ্যের অংশ হিসেবে ঘোষণার সুপারিশ করেছে ইউনেস্কো। ওকিনোশিমা নামে দক্ষিণ-পশ্চিম জাপানের এই দ্বীপটিকে ‘এতটাই পবিত্র বলে মানা হয়’ যে সেখানে শুধু পুরুষরাই যেতে পারেন।