জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসন যিনি Man with the Golden Arm নামেও পরিচিতো, ১৯৩৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। ১৮ বছর বয়স থেকে রক্ত দান করা শুরু করে বিগত ৬০ বছর ধরে মানব সেবায় তিনি রক্ত দান করে আসছেন। বর্তমানে তার বয়স ৮৩ বছর।

Read More


“RH Anti-D Antibody” প্রতিষেধক আবিষ্কারের পর থেকে ‘জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসন‘ প্রতি দুই সপ্তাহ পর পর প্লাজমা (রক্তের একটি উপাদান) দান করতে থাকেন। এভাবে গত ১১ই মে, ২০১৮ তারিখ পর্যন্ত তিনি মোট ১১৭৩ বার প্লাজমা দান করেছেন। উনার প্লাজমা থেকে তৈরিকৃত প্রতিষেধকের মাধ্যমে আনুমানিক ২৪ লক্ষ শিশুর জীবন রক্ষা পেয়েছে।

Read More


জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসন মাত্র ১৮ বছর বয়স থেকে রক্তদান শুরু করেন। ডাক্তাররা আশ্চর্যজনকভাবে আবিষ্কার করেন যে, তার রক্তে বিরল এক প্রকার এন্টিবডি আছে যা ‘Rhesus Disease’ নামে একপ্রকার প্রাণঘাতী রক্তরোগের বিরুদ্ধে মারাত্মক রকম কার্যকর। তাঁর রক্ত থেকে প্রতিষেধক তৈরি করা হল ‘RH Anti-D Antibody’।

Read More


জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসনকে শুধুমাত্র রক্ত দানের জন্য Man with the Golden Arm বলা হয়ে থাকে।

Read More


জেমস ক্রিস্টোফার হ্যারিসন নামের এক ব্যক্তির ১৪ বছর বয়সে বুকের সার্জারির জন্য প্রায় ১৩ ব্যাগ রক্ত নিতে হয়। সার্জারির পরে তাঁকে ৩ মাস হাসপাতালে থাকতে হয়। সেই সময়ে তিনি শপথ করেন যে, তিনি যতদিন বেঁচে থাকবেন ততদিন অন্যকে রক্ত দিয়ে যাবেন।

Read More


মগধ রাজ্যের রাজা বিম্বিসা ছদ্মবেশে বৈশালী রাজ্যে গিয়ে আম্রপালীকে দেখে তার রূপ দেখে অবাক হয়ে যায়। কিন্তু অবাক রাজার জন্য আরও অবাক কিছু অপেক্ষা করছিলো কারণ আম্রপালী প্রথম দেখাতেই তাকে সে যে মগধ রাজ্যের রাজা বিম্বিসার তা ধরে ফেলে !!!

Read More


বৈশালী শহরের সকল গণমান্য ব্যক্তি যখন সিদ্ধান্ত  নেয় যে আম্রপালীকে কেউ বিয়ে করতে পারবেনা কারণ তার যে রুপ সে একা কারো হতে পারেনা আম্রপালী হবে সবার সে হবে একজন নগরবধু মানে সোজা বাংলায় পতিতা তখন আম্রপালী সে সভায় ৫টি শর্ত রাখেন –  নগরের সবচেয়ে সুন্দর জায়গায় তার ঘর হবে, তাঁর মুল্য হবে প্রতি রাত্রির জন্য […]

Read More


তরুণ বৌদ্ধ সন্ন্যাসী শ্রমণকে ৪মাস বৈশালীর নগরবধূ আম্রপালী তার কাছে রাখেন এবং বিভিন্নভাবে প্রলুব্ধ করতে থাকেন। কিন্তু এই প্রথম কোন পুরুষকে বশ করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। এরপর সর্বস্ব ত্যাগ করে বুদ্ধের চরণে আশ্রয় চান আম্রপালী !!! সব কিছু দান করে তিনি বাকী জীবন গৌতম বুদ্ধের চরণেই কাটিয়ে দেন ইতিহাস বিখ্যাত এই রমণী আম্রপালী ।

Read More


মাহানামন নামে এক ব্যক্তি শিশুকালে আম্রপালীকে আম গাছের নীচে খুজে পায় তার আসল বাবা মা কে ইতিহাস ঘেটেও তা জানা যায়নি । যেহেতু তাকে আম গাছের নীচে পায় তাই তার নাম রাখে আম্রপালী । সংস্কৃতে আম্র মানে আম এবং পল্লব হল পাতা | অর্থাৎ আমগাছের নবীন পাতা ।

Read More


আম্রপালী এতোই সুন্দরী ছিলো যে এই রুপই তার জন্য কাল হয়ে উঠেছিলো কারন সে ছিলো ইতিহাসের এমন একজন নারী যাকে রাষ্ট্রীয় আদেশে পতিতা বানানো হয়েছিলো !!!

Read More