১১০৮ সালে জাপানের আসামা আগ্নেয়গিরিতে টানা ৩ মাস ধরে আগ্নুৎপাত অব্যাহত ছিলো। আর এই আগ্নুৎপাতের ফলে গ্রীনল্যান্ডের বরফে সালফেটের উপস্থিতি পাওয়া গিয়েছিলো।

Read More


১১০৯ সালে ইউরোপের আবহাওয়া হয়ে উঠেছিলো অস্বভাবিক ঠান্ডা এবং বৃষ্টিমুখর। অতিরিক্ত আগ্নুৎপাতের ফলে উদ্ভিদের ব্যাপক পরিবর্তন হয় যার ফলে আবহাওয়া এই রকম বিরুপ হয়ে উঠেছিলো।

Read More


১১০৮ সাল থেকে ১১১০ সাল এর মধ্যে ইউরোপ এবং এশিয়ায় সর্বাধিক আগ্নেয়গিরির বিস্ফোরণ হয়। এই বিস্ফোরন এর ফলে উৎপন্ন ছাই মেঘের সাথে মিশে দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে বিশ্ব জুড়ে ভেসে বেড়ায়।

Read More


পুরানো একটি পুঁথি থেকে পাওয়া যায় যে, ১১১০ সালটি ছিলো সাংঘাতিক বিপর্যয়ের একটি বছর। মুষলধারে ভারী ব্রিষ্টিপাত, ফসলহানী, দূর্ভিক্ষ, ধারাবাহিক অগ্ন্যুৎপাত সবই হয়েছিলো এই বছর। সব বিপর্যয় এক সাথে পৃথিবীতে হানা দিয়েছিলো।

Read More


১১১০ সালের চাঁদের অদৃশ্য হবার পিছনে মেঘ কিংবা চন্দ্রগ্রহন কোন ঘটনাই এর পিছনে দায়ী ছিলো না এবং এর ফলে পৃথিবীতে ভয়াবহ এক বিস্ময়য়ের এক আধার নেমে আসে পৃথিবী জুড়ে।

Read More


১১১০ সালে একদিন হঠাৎ করে আকাশ থেকে রহস্যজনকভাবে গায়েব হয়ে যায় চাঁদ।

Read More


মগধ রাজ্যের রাজা বিম্বিসা ছদ্মবেশে বৈশালী রাজ্যে গিয়ে আম্রপালীকে দেখে তার রূপ দেখে অবাক হয়ে যায়। কিন্তু অবাক রাজার জন্য আরও অবাক কিছু অপেক্ষা করছিলো কারণ আম্রপালী প্রথম দেখাতেই তাকে সে যে মগধ রাজ্যের রাজা বিম্বিসার তা ধরে ফেলে !!!

Read More


বৈশালী শহরের সকল গণমান্য ব্যক্তি যখন সিদ্ধান্ত  নেয় যে আম্রপালীকে কেউ বিয়ে করতে পারবেনা কারণ তার যে রুপ সে একা কারো হতে পারেনা আম্রপালী হবে সবার সে হবে একজন নগরবধু মানে সোজা বাংলায় পতিতা তখন আম্রপালী সে সভায় ৫টি শর্ত রাখেন –  নগরের সবচেয়ে সুন্দর জায়গায় তার ঘর হবে, তাঁর মুল্য হবে প্রতি রাত্রির জন্য […]

Read More


তরুণ বৌদ্ধ সন্ন্যাসী শ্রমণকে ৪মাস বৈশালীর নগরবধূ আম্রপালী তার কাছে রাখেন এবং বিভিন্নভাবে প্রলুব্ধ করতে থাকেন। কিন্তু এই প্রথম কোন পুরুষকে বশ করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন। এরপর সর্বস্ব ত্যাগ করে বুদ্ধের চরণে আশ্রয় চান আম্রপালী !!! সব কিছু দান করে তিনি বাকী জীবন গৌতম বুদ্ধের চরণেই কাটিয়ে দেন ইতিহাস বিখ্যাত এই রমণী আম্রপালী ।

Read More


মাহানামন নামে এক ব্যক্তি শিশুকালে আম্রপালীকে আম গাছের নীচে খুজে পায় তার আসল বাবা মা কে ইতিহাস ঘেটেও তা জানা যায়নি । যেহেতু তাকে আম গাছের নীচে পায় তাই তার নাম রাখে আম্রপালী । সংস্কৃতে আম্র মানে আম এবং পল্লব হল পাতা | অর্থাৎ আমগাছের নবীন পাতা ।

Read More