আপনি জানেন কি? – ২৫১২

পর্তুগিজ তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর শরীরে পেশির অনুপাত ৫০ শতাংশ, যেখানে অন্য ফুটবলারদের ক্ষেত্রে তা সরাচর ৪৬ শতাংশ টপকাতে পারেনি


আপনি জানেন কি? – ২৫১১

৩৩ বছর বয়সী রোনালদো যেনো ২৩ বছরের টগবগে যুবক! রোনালদোর শরীরের গঠন বিশ্লেষণ করে কিছু অবিশ্বাস্য তথ্য পাওয়া গেছে। যেমন ধরুন, ফুটবলারদের শরীরে সরাচর চর্বির হার গড়ে যেখানে ১০-১১ শতাংশ, রোনালদোর সেখানে মাত্র ৭ শতাংশ।


আপনি জানেন কি? – ২৫১০

এতো দিন ধরে আমারা জেনে এসেছি, গাঁজা মানুষের সৃজনশীল কাজে ব্যাপক সহায়তা করে। কিন্তু আমাদের এই জানা কথা একেবারেই ভুল প্রমাণিত করেছে নেদারল্যান্ডের গাঁজা বিষয়ের একটি জরিপ। তাদের সেই জরিপ দেখা যায়, গাঁজা মানুষের সৃজনশীল ক্ষমতাকে নিস্তেজ করে দেয়।


আপনি জানেন কি? – ২৫০৯

হোয়াইট হাউস নিয়ে কিছু ভৌতিক কাহিনী প্রচলিত আছে। বলা হয়, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিল একবার হোয়াইট হাউসের লিংকন বেডরুমে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট আব্রাহাম লিংকনের নগ্ন ভূত দেখতে পেয়েছিলেন। পরদিন তিনি দ্বিতীয়বার ওই রুমে থাকতে অস্বীকার করেন। হোয়াইট হাউসের কর্মীদের ‘বদৌলতে’ এ গল্পের আরও অনেক শাখা-উপশাখা শুনতে পাওয়া যায়।


আপনি জানেন কি? – ২৫০৭

ফেজ্যান্ট আইল্যান্ড নিয়ে ফ্রান্স ও স্পেনের মধ্যকার চুক্তির নাম ট্রিটি অব পিরেনিস। চুক্তি চূড়ান্ত করতে আয়োজন করা হয়েছিল এক রাজকীয় বিয়ের। স্পেনের রাজা পঞ্চম ফিলিপের মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন ফরাসি রাজা চতুর্দশ লুই। এভাবেই চুক্তিটি কার্যকর হয়েছিল।


আপনি জানেন কি? – ২৫০৬

মালিকানা বদলের ঐতিহ্য বা কোনো স্থানের দ্বৈত সার্বভৌমত্বের বিষয়টিকে বলা হয় কন্ডোমিনিয়াম। ঐতিহাসিকদের মতে, এখনো পর্যন্ত কন্ডোমিনিয়ামের সবচেয়ে পুরোনো উদাহরণ হলো ফেজ্যান্ট আইল্যান্ড


আপনি জানেন কি? – ২৫০৫

ফ্রান্স ও স্পেনের মধ্যকার প্রাকৃতিক সীমান্ত হলো বিদাসোয়া নামের একটি নদী। এই নদীর ঠিক মাঝ দিয়ে গেছে দুই দেশের সীমান্তরেখা।


আপনি জানেন কি? – ২৫০৪

নর্থওয়েস্টার্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বেশ কয়েকজন বিজ্ঞানীর গবেষণায় পাওয়া যায় , গাঁজা মানুষের স্মৃতিশক্তি নষ্ট করে দেয়। গাঁজা গ্রহণের ফলে অধিকাংশ মানুষের বেশি সময় ধরে কোনো কিছু মনে রাখতে পারে না। অর্থাৎ কোনো কিছু মনে রাখার মত শক্তি তাদের নষ্ট হয়ে যেতে থাকে। তবে হ্যাঁ, এ বিষয়ে এখনো অনেক গবেষণা চলছে।


আপনি জানেন কি? – ২৫০৩

মহাকাশ বিদীর্ণ করা রকেটের আবিষ্কারক ওয়ের্নার ভন ব্রাউনই ছিলেন নাৎসি পার্টির একজন সদস্য, একইসাথে সুৎসটাফে (Schutzstaffel– জার্মান এয়ারফোর্স)- এর একজন বড় মাপের অফিসার।